বুধবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং। ১০ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। সকাল ৯:৫০








প্রচ্ছদ » সারাদেশ

ময়মনসসিংহে দুলাভাই ও প্রেমিকের ধর্ষণে মা হলো কিশোরী, কে হবেন বাবা?

সারাদেশে ধর্ষনের ঘটনা ক্রমেই বেড়ে চলেছে।ধর্ষণের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না নিজের মেয়েও।ধর্ষণকে অপরাধই মনে হচ্ছে না লম্পটদের কাছে । লম্পটদের লালসার শিকার হচ্ছে দেশের হাজারো নারীও শিশু । এমনি এক ভয়ংকর ধর্ষণের শিকার  হয়েছিলেন গত সেপ্টেম্বর মাসে এক কিশোরী । জানা গেছে

ময়মনসসিংহের সদর উপজলোয় দুই বোন জামাইয়ের ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা এক কিশোরী মা হয়েছে। কে হবে এই শিশুর বাবা, এ নিয়ে এলাকায় শেষ নেই জল্পনা কল্পনার। ঘটনাটি ঘটে সদর উপজেলার ৭নং চর নিলক্ষিয়া ইউনিয়নে।

বিস্তারিত পড়তে Read More ক্লিক করুন...

পরে ওই কিশোরীর অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। পরদিন (২৪ সেপ্টেম্বর) নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়।ধষর্ণের বিষয়টি কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম‘কে জানালে তৎক্ষনাত এসআই মো. মঞ্জুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

পরে ওই দিন (২৪সেপ্টেম্বর) রাতেই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় দুই বোন জামাই রিপন ও রাব্বির নামে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

ওই কিশোরী জানায়, রাব্বি আমাকে বিয়ে করবে বলে প্রেমেরে সর্ম্পক গড়ে তুলে। এর এক পর্যায়ে বিয়ের আশ্বাসে রাব্বি একাধকি বার আমার সাথে সে দৈহিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়।এক পর্যায়ে আমার আপন বোন জামাই প্রেমের সর্ম্পকের বিষয়টি জানতে পারে। বোন জামাই রিপন আমাকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে আমার সাথে একাধিকবার দৈহিক সর্ম্পক গড়ে তুলে। এতে আমি অন্তঃসত্তা হয়ে পরি।

এরপর গত মাসের (৩ নভেম্বর) আমি মা হয়েছি। এখন আমি বাচ্চার ভবিষ্যৎ নিয়ে আমি শংকায় আছি। এর সঠিক সমাধানের জন্য আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি।রিপনের স্ত্রী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলনে, ‘এ কথা শোনার পরইে আমি বাবার বাড়িতে চলে এসেছি। আমিও আমার স্বামীর উপযুক্ত বিচার চাই।’

এ ঘটনার বিষয়ে ময়মনসিংহ নগরীর ১নং পুলিশ ফাঁড়ির এসআই চাঁদ মিয়া বলেন, এ ঘটনায় রাব্বি (৪ অক্টোবর) আদালতের মাধ্যমে আত্বসমর্পন করে। রিপন পলাতক থাকলেও (২৯ নভেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে নগরীর টাঙ্গাইল বাস-স্টেশন এলাকা থেকে তাকে পুলিশ আটক করে।নভেম্বর মাসে শিশুর জন্মের পর আদালতের মাধ্যমে ওই কিশোরীর বাবার জিম্মায় দেয়া হয়েছে । তবে এ ঘটনায় এখনও কোন সমাধান হয়নি কে হবেন শিশুটির বাবা ।