মঙ্গলবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০১৭ ইং। ৪ঠা মাঘ, ১৪২৩ বঙ্গাব্দ। রাত ৯:০১






প্রচ্ছদ » বিভিন্ন সংবাদ

ভারতের ৫টি অদ্ভুতুড়ে উৎসব যা জানলে শিউরে উঠবেন

এদেশে কত যে বিচিত্র রীতি-রেওয়াজ-উৎসব রয়েছে তার কোনও ইয়ত্তা নেই। এই উৎসবগুলির বেশিরভাগই একেবারে আঞ্চলিক। তাই দেশের একপ্রান্তের মানুষ খবর রাখেন না অন্যপ্রান্তের বিচিত্র উৎসবের।

ভারতে অদ্ভুতুড়ে বিষয়আশয়ের অভাব নেই। আধ্যাত্মিকতা ও অলৌকিকতা নিয়ে এদেশের বহুযুগের কারবার। এদেশে এমন বহু উৎসব রয়েছে যার কথা শুনলে এদেশের মানুষই চমকে উঠবেন—
অগ্নিখেলি

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন...

এক বিশাল মাঠে জড়ো হন খেলোয়াড়রা। সকলের পরনে থাকে ল্যাঙট জাতীয় কিছু। খেলোয়াড়ের এর পর তৈরি করে নেন তাঁদের অস্ত্র— আগুনের গোলা। দু’টি দলে ভাগ হয়ে যান তাঁরা আর তার পর শুরু হয় প্রকৃতপক্ষেই আগুন নিয়ে খেলা। একে অপরের দিকে আগুনের গোলা ছুড়ে মারা— এই হল অগ্নিখেলি। প্রতি বছর এপ্রিল মাসে ম্যাঙ্গালোরে অনুষ্ঠিত হয় এই খেলা। খেলতে খেলতে কারও গায়ে আগুন লেগে গেলে তার গায়ে ছেটানো পবিত্র জল, ‘কুমকুমার্চনে’।
কার্নিমাতা উৎসব

রাজস্থানের কার্নিমাতা হলেন আসলে মা দুর্গার একটি রূপ। রাজস্থানের কার্নিমাতা মন্দিরে রয়েছে শয়ে শয়ে ইঁদুর। ওই ইঁদুরের এঁটো করা প্রসাদ খাওয়া নাকি অতি পুণ্যের কাজ। প্রতি বছর কার্নিমাতা উৎসবের সময়ে যাঁরা সেখানে পুজো দিতে চান, তাঁরা এই পুণ্যটি করে থাকেন। যদিও বলা হয় যে যিনি খুবই ভাগ্যবান একমাত্র তিনিই ওই ছাইরঙা ইঁদুরের ভিড়ে একটি সাদা ইঁদুরকে দেখতে পান।
থাইপুসম

দক্ষিণ ভারতের এই উৎসবের কথা জানলে শিউরে উঠতে হয়। দেবসেনাপতি মুরুগান অথবা কার্তিকের এই উৎসবের মূল বিষয়টি হল শরীরকে কষ্ট দিয়ে ঈশ্বরের পুজো করা। শরীরে যতবার এবং যতরকম ভাবে সম্ভব ধারালো পিয়ার্সিং দিয়ে ফুঁড়ে দেওয়াই হল এই উৎসবের রীতি।
মাদেস্নান

জাতপাত নিয়ে ভারতে যে কত রকমের কুসংস্কার রয়েছে তার অন্যতম প্রমাণ এই উৎসব। কর্ণাটকের সুব্রমনিয়া মন্দিরের এই প্রথা কয়েকশো বছরের। ব্রাহ্মণেরা খেয়ে উঠে যাওয়ার পরে সেই এঁটো পাতের উপর গড়াগড়ি দেন নীচু জাতের মানুষ। তাঁদের ধারণা, এটি করলে নাকি তাঁদের শরীরের নানা রোগব্যাধি সেরে যাবে। ২০১০ সালে কর্ণাটক সরকার এই উৎসবকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করলেও ২০১১ সালে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে হয় স্থানীয় মানুষদের বিরোধিতায়।
আদি উৎসব

তামিল আদি মাসের ১৮ তারিখে তামিলনাড়ুর কারুর জেলার মহালক্ষ্ণী মন্দিরে শয়ে শয়ে মানুষ জড়ো হন। সারিবদ্ধ হয়ে বসে পড়েন তাঁরা মন্দির প্রাঙ্গণে আর মন্দিরের পুরোহিতেরা একে একে তাঁদের মাথায় মেরে নারকোল ফাটান। প্রচলিত ধারণা, এই নারকোল ফাটানোই তাঁদের জীবনে সৌভাগ্য এনে দেবে। কিন্তু এর পিছনের গল্পটি অন্য। ব্রিটিশ ভারতে একবার ওই মন্দিরটি ভেঙে রেললাইন পাতার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে আপত্তি জানান স্থানীয় মানুষজন। এর পর ব্রিটিশ শাসকেরা তাঁদের ভক্তি পরীক্ষা করতে গিয়ে একটি চ্যালেঞ্জ করে বসেন। যদি ভক্তরা তাঁদের মাথা দিয়ে পাথর ভাঙতে পারেন তবে মন্দিরটি ভাঙা পড়বে না। শেষ পর্যন্ত মন্দিরটি ভাঙা তো পড়েইনি, ভোল পালটে সেই পাথর ভাঙা এখন নারকোল ফাটানোয় দাঁড়িয়েছে।

ডাউনলোড ডাউনলোড ডাউনলোড ডাউনলোড

কী হবে এই ৬ বোনের? কে করবে বিয়ে?
ব্যাংক থেকে কীভাবে টাকা তুলবেন, বদলাবেন? জানুন ১০টি জরুরি প্রশ্নের উত্তর
কঠোর গোপনীয়তায় ঢাকায় এলো লুই আই কানের সেই নকশা


সর্বশেষ সংবাদ

সাত খুন মামলার নথি যাচ্ছে হাইকোর্টে

কনডেম সেলে যেভাবে আছেন নূর-সাঈদ

বার্সেলোনার জন্য দুঃসংবাদ

ইমরুলের বদলে সৌম্য?

কেন তিনি হিন্দু ধর্ম ছেড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন?

শৈলকুপায় এবার বৃদ্ধ কবিরাজকে কুপিয়ে হত্যা !

মোবাইলের ব্যাটারিতে থাকছে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা

চাচার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগে ভাতিজার সাংবাদিক সম্মেলন !

শিক্ষার্থীদের পড়ানো হচ্ছে গাছ তলায় । হতাশায় অভিভাবকরা !!!!

রায়পুরায় বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের সাথে কেন্দ্রীয় নেতা কাওছারের মতবিনিময়

ঢাকা উত্তরে ১৫৩ ভবন ঝুঁকিতে

কালীগঞ্জে অবৈধ যানবাহন, হোটেল ও ওষুধের দোকানে জরিমানা !

শূন্য রানে ৬ উইকেট নিয়ে সরফরাজের বিশ্বরেকর্ড!

দেশের চেয়ে ভারতে বেশি জনপ্রিয় শাকিব খান?

মিরাক্যাল! এই ওষুধের সাহায্যে ধরা থাকবে যৌবন

আবারো বড় দু:সংবাদ পেলেন আশরাফুল

সেক্স পাওয়ার বাড়াতে ১গ্লাস সরবত, দারুন হবে মিলন

ভোগের চেয়েও বড় জায়গায় যাচ্ছেন পিয়া

সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ গেল মদীনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশী শিক্ষার্থীর

কনডেম সেলে বিমর্ষ নুর হোসেন, দুপুরে কিছুই খাননি তারেক সাঈদ



[X]